আমার বাপ কি তবে হিন্দু ?

পবিত্র ওমরাহ হজ পালন করতে গত এক সপ্তাহ সৌদি আরবের মক্কায় অবস্থান করছেন অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া। সঙ্গে রয়েছেন তার মা।

শুরু থেকে বিষয়টি বেশ গোপন রাখলেও শুক্রবার (২২ মার্চ) সোশ্যাল মিডিয়ায় তথ্যটি একটি স্ট্যাটাসের জানান তিনি। তার স্ট্যাটাসে এই হজ করার খবরটি প্রকাশের পর ‍মিডিয়া-দর্শক-সমালোচকরা বিষয়টিকে ঠিক কীভাবে মূল্যায়ন করবে, সেটি নিয়েও বেশ দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেছেন স্পর্শিয়া।

তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো…

বেশ স্পষ্ট ভাষায় তিনি বলেন, ‘মায়ের স্বপ্ন আর ইচ্ছা পূরণ করতেই তার সঙ্গে ওমরাহ পালন করতে মক্কায় আছি, এক সপ্তাহ হলো। যারা এই তথ্যটি জানে না, তারা হয়তো বলছে আমি দুবাইতে কোনও অসৎ কাজে এসেছি! আর যারা ওমরাহ করার বিষয়টি জানে, তারা এটা নিয়ে নিশ্চয়ই মজা নিচ্ছে। হয়তো কেউ কেউ বলছে, এটা সিনেমার প্রচারণায় ফাঁকি দেওয়ার অজুহাত!’

এদিকে হজের পরে চলচ্চিত্র শুটিং ও খোলামেলা পোশাক পরা নিয়ে আসন্ন বিতর্ক নিয়েও লিখেছেন তিনি। ‘ঢাকা এবং শুটিংয়ে ফেরার পর খোলামেলা পোশাক পরলে বা ফেসবুকে ছবি প্রকাশ করলে অনেক মানুষ তখন আমাকে দোজখের আগুনে পোড়ানোর ধমক দেবেন। আবার সামনে পূজা উৎসব, কলাবাগান মণ্ডপে প্রতি বছরের মতো এবারও হয়তো শামিল হবো। তখন আবারও সবার কৌতূহল আর গবেষণা শুরু হবে, স্পর্শিয়া হিন্দু না মুসলিম! সে পূজামণ্ডপে কেন? তো এবার তো ওমরাহ করার সুবাদে সবাই জানলো আমার মা মুসলিম।

এবার নিশ্চয়ই প্রশ্ন উঠবে, আমার বাপ কি তবে হিন্দু? ঢাকায় ফেরার পর এভাবে আরও কতো প্রশ্ন আর হুমকির মুখোমুখি হতে হবে আমাকে, সেসব ভেবেই অস্থির লাগছে!’

তবে সব কিছু এড়িয়ে ওমরাহ করতে পেরে নিজের সন্তুষ্টিও প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী। বলেন, ‘আমি অনেক খুশি ওমরাহ পালন করতে পেরে। মায়ের হাত ধরে ওমরাহ সম্পন্ন করতে পেরেছি, এটা আমার জন্য অনেক সুখের বিষয়। এর জন্য মাকে ধন্যবাদ জানাই। কারণ, আমাকে সে মক্কায় নিয়ে এসেছেন। সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া চাই, যেন আমার দেশের মানুষের মন ও মানসিকতায় পরিচ্ছন্নতা এনে দেয়। আমিন।’

 

টিভি পর্দার এই জনপ্রিয় মুখ সাম্প্রতিক সময়ে নিজেকে ব্যস্ত করেছেন সিনেমায়। বিশেষ করে তার তিনটি ছবি রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। এরমধ্যে শিগগিরই মুক্তির কথা রয়েছে ‘কাঠবিড়ালী’ ও ‘আবার বসন্ত’ নামের ছবি দুটি। চলছে জোর প্রচারণাও।

0
0

Staff_Reporter1005/Rakib

He is online reporter at DAT (DainikAparadhTothya).

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *